টেকনাফে জনবল নিয়োগে নিয়ম মানছেনা ‘এএসডি’ নামে এনজিও

8

টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত জার্মান ফান্ডের পরিচালিত এনজিও সংস্থা এ্যাকশন ফর সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট (‘এএসডি’) এর বিরুদ্ধে জনবল নিয়োগে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় বেকার ছেলে-মেয়েদের নিয়োগ না দিয়ে সিলেট ও চট্টগ্রাম থেকে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা আত্নীয়স্বজন এনে নিয়োগ নিচ্ছে। জানা গেছে- টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরার ২৭ নং ক্যাম্পে চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকে লোক এনে অফিসের সাপোর্ট স্টাফ ও কমিউনিটি মোবালাইজার পদে নিয়োগ দেওয়ায় (‘এএসডি’) এনজিও সংস্থার প্রতি স্থানীয়দের ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। দু’টি পদে নামেমাত্র নিয়োগ পরিক্ষা দেখিয়ে আগে থেকে টিক করা চট্টগ্রাম থেকে সোহাগ নামে এক লোক এনে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ নিয়োগ বাতিল না করলে স্থানীয়রা। সম্প্রতি বিভিন্ন বৈঠকে স্থানীয় ছেলে/মেয়েদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এনজিওতে নিয়োগ দেওয়ার। এসময় এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিরা বৈঠকে নেতৃবৃন্দদের আশ^স্থ করে বলেছিলেন আগামীতে যে সমস্ত জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে তাতে স্থানীয়দের ৮০% কোটা নির্ধারিত থাকবে। কিন্তু কথা আর কাজে মিল নেই এনজিওদের তা প্রমাণ করল ‘এএসডি’ এনজিও সংস্থাটি। সম্প্রতি অফিসের সাপোর্ট স্টাফ ও কমিউনিটি মোবালাইজার পদে স্থানীয় শিক্ষিত বেকার ছেলে/মেয়েরা এতে আবেদন জমা দিলেও এসব আবেদন গুরুত্ব না দিয়ে পানের দোকানদারদের দিয়ে দেয় এনজিও ‘এএসডি’। স্থানীয় কামাল হোসেন নামের এক যুবক জানিয়েছেন তিনি খবর পাওয়ার পর আবেদন করেছিলেন, কিন্তু তাকে নিয়োগ না দিয়ে চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকে বড় কর্তাদের আত্নীয়-স্বজন এনে নিয়োগ দিয়েছে। উখিয়া-টেকনাফ বাচাঁও আন্দোলন কমিটির আহবায়ক সাংবাদিক নুর মোহাম্মদ সিকদার জানান, স্থানীয় শিক্ষিক বেকার ছেলে/মেয়েদের চাকুরী না দিয়ে ‘ ‘এএসডি’ ’এনজিও সংস্থাটি মারাত্মক ভূল করেছে। এই ভূলের খেসারত দিতে হবে। তিনি এসময় ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে এ নিয়োগ বাতিল না করলে উখিয়া-টেকনাফ বাচাঁও আন্দোলনের পক্ষ থেকে বেকার ছেলে/মেয়েদের নিয়ে বৃহত্তর কর্মসূচী ঘোষনা করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here