টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তিন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত : অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

122

মোঃ আলমগীর, টেকনাফ ::

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে মেরিনড্রাইভ সংলগ্ন সমুদ্র সৈকত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় তিনটি অস্ত্র ও ৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। ভিকটিম রমজানকেও উদ্ধার করা হয়। টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ জানান, কয়েকদিন আগে টেকনাফের হ্নীলা লেদা পুরাতন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আবু ছিদ্দিকের ৩ বছর বয়সী শিশু পুত্র রমজান আলীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী। তারা শিশুটির পরিবারের কাছ থেকে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। অবশেষে পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। এরপর গত রাতে টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ বীচ এলাকায় অপহরণকারীদের অবস্থানের খবর পেয়ে পুলিশ অভিযানে গেলে প্রথমে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে অপহরণকারী দলের সন্ত্রাসীরা। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি করলে তিনজন রোহিঙ্গা যুবক গুলিবিদ্ধ হয়। পরে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাদের মৃত ঘোষনা করেন। নিহতরা হলো-উখিয়ার থাইংখালী ১৩ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সি-ব্লক এলাকার বাসিন্দা নুর মোহাম্মদের ছেলে সামশুল আলম (৩৫), একই ক্যাম্পের মোক্তার আহমদের ছেলে নুর আলম (২১) ও টেকনাফের হ্নীলা লেদা পুরাতন রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকার আজিজুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ হাবিব (২০)। পুলিশ জানায়, উক্ত অভিযানে এরশাদুল, সেকান্দর ও সৈকত বড়ুয়া নামে তিনজন পুলিশ কনস্টেবলও আহত হয়েছে। তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এদিকে মৃতদেহগুলো ময়না তদন্ত রিপোর্ট তৈরী করার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here