ধীরে ধীরে জমে উঠছে টেকনাফে ঈদের বাজার!

1

মোহাম্মদ আলমগীর । 

বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণে পর্যটন নগরী টেকনাফ উপ শহরের গুরুত্বপূর্ন বাণিজ্যিক কেন্দ্র টেকনাফ পৌরসভার উপরের বাজার ও বার্মিজ মার্কেটে ধীরে ধীরে জমে উঠছে ঈদ বাজার। বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় রমজানের ঈদই ব্যবসায়ীদের কাছে ব্যবসার রমরমা সময়। টানা এক মাস ধরে সব ধরনের পণ্যের ব্যাপক কেনা বেচা কে সামনে রেখে টেকনাফ বাজারের বিভিন্ন মার্কেট ও ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোরগুলোতে বেচাকেনার ভীড় বাড়ছে একটু একটু। ১৩ই মে সোমবার বিকেলে বাজারের বিভিন্ন মার্কেটগুলো ঘুরে দেখা যায়,ঈদ উপলক্ষে ব্যবসায়ীরা অনেক আগে থেকেই ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন।
পূর্বেকার সময়ে ১৫ রোজা থেকেই ক্রেতারা ভীড় জমাত মার্কেটগুলোতে। বিগত কয়েকবছর ধরে এ সংস্কৃতিতে পরিবর্তন এসেছে। এখন মানুষ রোজা শুরুর পর থেকেই ঈদের কেনাকাটা শুরু করে দেয়। শাহ্পরীরদ্বীপ থেকে আসা ক্রেতারা জানান,তারা শপিং করতে এসেছেন টেকনাফ বাজারে। এত আগে শপিং করতে আসার কারণ জিজ্ঞাসা করলে তারা জানান, দশ রোজার পর থেকে মার্কেট গুলোতে যানজট অনেক বেড়ে যায় সে কারনেই তারা মূলত আগেভাগেই কেনা কাটা সেরে নিচ্ছেন বলে জানান। বাজারে আসা নারী ক্রেতাদের মতে,আগে ভাগেই ঈদের কেনা কাটা সরুপ থ্রী পিচ দেখতে আসছি আমরা। রোজার শেষ দিকে কাজের চাপ এবং মার্কেট গুলোতে ভীড় থাকে। শেষ সময়ে কাপড়ের দোকানগুলোতে পছন্দের কাপড় হয়ত নাও থাকতে পারে। তাই আগেভাগে তারা পোশাক কেনাকাটা সেরে নিতে আসছে। অন্যদিকে টেকনাফের উপরের বাজার ও বার্মিজ মার্কেট আল্ মক্কা ভাই ভাই শপিং সেন্টার। অভিজাত আল-মদিনা শপিং সেন্টার, সানা ফ্যাশন,শিহাব শপিং সেন্টার, মনে রেখ,নিউ মার্কেট, নিউ কুমিল্লা গার্মেন্টস্ ফারুক স্টোর, “ডিজিটাল এ এইছ টেলিকম মোবাইলের দোকান।”লামার বাজার মোজাহার কোং মার্কেটে “রাহমা আল মদিনা শপিং”ডিপার্টমেন্টার ষ্টোর,এর দোকান গুলো তেই পুরুষ ক্রেতাদের পাশা পাশি নারী ক্রেতাদেরও ভীড় দেখা যাচ্ছে। এবং ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোরগুলোতে ক্রেতারদের একটু একটু ভীড় লক্ষ্যনীয়।

পুরুষ ক্রেতাদের পাশা পাশি নারী ক্রেতাদেরও ভীড় দেখা যাচ্ছে। সেই সাথে ছোট ছোট শিশুরাতো রয়েছে। এক ষ্টোরের সত্বাধিকারীর মতে,শাড়ীর পাশা পাশি থ্রি পীচও লেহেঙ্গার কদরও কম নয় বিশেষ করে নারী ক্রেতাদের কাছে এবারের ঈদে। তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় দাম একটু চড়া। তবে মোবাইলের দোকান গুলো তেই পুরুষ ক্রেতাদের পাশা পাশি নারী ক্রেতাদেরও ভীড় দেখা যাচ্ছে। টেইলার্স গুলোতেও ভীড় পরিলক্ষিত হয়েছে। মূলত রোজার সময় যানজট,ভীড় ও ঝামেলা এড়াতে রোজার শুরু থেকেই অনেকে কেনাকাটা শুরু করে দেন। সবমিলিয়ে টেকনাফ উপরের বাজার ও বার্মিজ মার্কেটে আস্তে আস্তে জমে উঠেছে ঈদের বাজার।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here